আমাদের নরসিংদী

নরসিংদী বাংলাদেশের একটি সুপ্রাচীন সমৃদ্ধ জেলা । এবং তাঁতবস্ত্রের জন্য বিখ্যাত জনপদ।  শিক্ষা, শিল্প, সংস্কৃতি, ইতিহাস, ঐতিহ্য, স্বাধিকার আন্দোলন এবং মুক্তিযুদ্ধে নরসিংদীর রয়েছে গৌরবোজ্জ্বল অবদান। নরসিংদী জেলার আয়তন ১ হাজার ১৪০ দশমিক ৭৬ বর্গকিলোমিটার। উপজেলা আছে ৬টি। উপজেলাগুলো হলো নরসিংদী সদর, বেলাবো, মনোহরদী, পলাশ, রায়পুরা ও শিবপুর। প্রধান নদীগুলো হচ্ছে : মেঘনা, আড়িয়াল খাঁ, পুরাতন ব্রহ্মপুত্র, হাঁড়ীধোয়া, শীতলক্ষ্যা ও কলাগাছিয়া। নরসিংদীর উত্তরে কিশোরগঞ্জ, দক্ষিণে নারায়ণগঞ্জ ও ব্রাহ্মণবাড়িয়া, পূর্বে ব্রাহ্মণবাড়িয়া ও কিশোরগঞ্জ এবং পশ্চিমে গাজীপুর জেলা। মহান স্বাধীনতা যুদ্ধে নরসিংদী ৩ নং সেক্টরের অধীনে ছিল।

নরসিংদী শহরের নামকরণের ইতিহাস
হাবসী শাসনামলের শেষ পর্যায়ে সোনারগাঁও অঞ্চলের উত্তর-পশ্চিম সীমান্তে শীতলক্ষ্যার তীরে হিন্দু জমিদার ধনপদ সিংহ রাজা খেতাব গ্রহণ করেন। রাজা ধনপদ সিংহের পুত্র নরসিংহী বাবার জমিদারির সীমা বৃদ্ধি করে প্রাচীন ব্রহ্মপুত্র নদের তীরে, নগর নরসিংহপুর নামে একটি ছোট্ট শহর প্রতিষ্ঠা করেন। নিজের আবাসিক স্থান তৈরি করেন। বর্তমানে পলাশ উপজেলার পারুলিয়া গ্রামটিই সেই শহর। ধারণা করা হয়, রাজা নরসিংহের নাম থেকেই নরসিংদী নামকরণ হয়েছে। নরসিংদীর সঙ্গে দী শব্দটির একটি ব্যাখ্যা আছে। আসলে প্রাচীনকালে শব্দটি ছিল ডিহি। সংস্কৃত ভাষায় ডিহি শব্দের অর্থ হলো ডাঙা। নরসিংদী একটি উঁচু অঞ্চল। সেই কারণেই স্বভাবতই এর নাম ছিল নরসিংহ ডিহি। পরবর্তীতে সাধারণের মুখে মুখে এর নাম হয়েছে নরসিংদী। বর্তমান সময়ে হ বিলুপ্ত হয়ে নাম হয়েছে নরসিংদী।

 

Add a Comment